Author Topic: বেঁচে থাকা আনন্দের; কারন জীবন সুন্দর!  (Read 104 times)

0 Members and 1 Guest are viewing this topic.

Farhana Haque

  • Administrator
  • Official
  • *****
  • Posts: 20
  • Gender: Female
  • You will never have this day again! Make it count!
    • View Profile
    • Email
বেঁচে থাকা আনন্দের; কারন জীবন সুন্দর!

আমরা প্রায়শই বলে থাকি কোন কাজের সঠিক পরিকল্পনা মানেই হচ্ছে কাজটি অর্ধেক সম্পন্ন হয়ে যাওয়া, ঠিক তেমন করেই আমাদের এটাও বিশ্বাস করা উচিত যে সুন্দর একটি চিন্তা কিংবা কারো ভালো করার প্রাণান্ত চেষ্ঠা ভালো কিছুই বয়ে আনে। অন্যের সুখে যে নিজেকে সুখী  ভাবতে পারে প্রকৃতপক্ষে তাকেই আমরা মানুষ বলে দাবী করতে পারি।
পৃথিবীর সকল চাওয়াই যে পূর্নতা পাবে, কিংবা প্রকৃতি যে সবসময়ই সহায় হবে এমন ভাবার কোন কারণ নেই। কখনো কখনো প্রকৃতি বিমাতাসুলভ আচরণ করবে, বৈরী হবে, কখনো কেউ কেউ আড়চোখে তাকাবে আপনার দিকে, সংসারে আপন অনেকেই অনেক রকম অপ্রত্যাশিত দুঃখ দেবে... সেই সব কিছুকে ছাপিয়েই আমাদেরকে ভালো থাকতে হবে, অন্যের ভালোর জন্য ভাবতে হবে। হতাশা  কখনো কাওকে ভালো কিছু দিতে পারেনি। নিজের যতটুকু যৎসামান্য সাধ্য রয়েছে ততটুকুর জন্য আল্লাহ্‌ রাব্বুল আলামিন কে ধন্যবাদ জানানো উচিত। খুব স্বল্প সময় নিয়ে আমরা এই পৃথিবীতে আসি। একজন মানুষ অনন্তকালের মত চলে যাবার পর যদি আমারা তার কোন একটা ভালো কাজের জন্য তাকে শ্রদ্ধায় স্মরণ করতেই না পারি... তাহলে মানবজন্ম বৃথা।


নিজেদের নিয়ে আমরা যখনই মাত্রাতিরিক্ত হতাশায় নিমজ্জিত হবো, তখনই আমাদের তাকিয়ে দেখা উচিত স্রষ্টার সমগ্র সৃষ্টির দিকে। প্রার্থনার হাত প্রসারিত করা উচিত সৃষ্টিকর্তার উদ্দেশ্যে যে  তিনি আরো একটি সুন্দর সকাল দেখার জন্য আমদের এখনো বাঁচিয়ে রেখেছেন। তাকিয়ে দেখা উচিত ফুতপাতের ধার ঘেঁষে শুয়ে থাকা একজন নির্লিপ্ত মানুষের দিকে, যার মাথার উপর কোন ছাদই নেই। কোন স্বপ্ন নেই। তবুও তার জীবনযাপন থেমে নেই, চলছে। সমবেদনা অনুভব না করে গর্বিত হওয়া উচিত যে আমাদের ছিল তালহার মত এমন মূল্যবান একটি রত্ন যে নিজের জীবন দিয়ে দিয়েছে আরেকজন মানুষকে বাঁচাতে গিয়ে।
একজন শিক্ষক, একজন কর্মকর্তা কিংবা একজন ছাত্র হিসেবে আমাদের প্রত্যেকেরই উচিত গর্ব অনুভব করা যে আমারা ড্যাফোডিল আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয় এর মত এমন একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সান্নিধ্যে আছি যেখানে "আর্ট অফ লিভিং'' এর মত সুন্দর একটি কোর্স রয়েছে।যেখানে শেখানো হয় সত্যিকারের বাঁচার মানে, যেখানে শেখানা হয়, মানুষ হলে কেমন মানুষ হতে হবে, যেখানে শেখানো হয় দায়িত্ব বা কর্তব্য ভালোবেসে পালন করতে হয়, আর ভালবাসা দিয়েই জগতের অনেক অসাধ্যকেও সাধন করা যায়। 

কারো চাওয়ার মতই হতে হবে এমন কোন কথা নেই। আমরা যার যার মত হবো। নিজেরা নিয়ন্ত্রন করবো নিজেদের রাগ, দুঃখ, ক্ষোভ ও হতাশাকে। রাগ কিংবা হতাশার হাতে নিজেকে নিয়ন্ত্রনের চাবি তুলে দেব না। পরজন্ম বলে কিছু হয় না, যা কিছু অর্জনের সব এজন্মেই করে নিতে হবে, হতাশা কিংবা দুঃখ নয় বিশ্বাস এবং সততার সাথে এগিয়ে যেতে হবে। যাতে অনন্তপ্রস্থানের পরেও সকলে আমাদের স্মরণ করে শ্রদ্ধা ভরে...নিজেরই পরিচয়ে। বেঁচে থাকা আনন্দের; কারন জীবন সুন্দর! তাই চারপাশের অনেক অপ্রত্যাশিত অসুন্দরের মাঝে সুন্দর কে হারিয়ে যেতে দেওয়া যাবে না...।

চিরঞ্জীব হউক প্রতিটা শুদ্ধ হৃদয়। এই প্রত্যাশা এবং বিশ্বাসই তো  আমাদের বেঁচে থাকার শতরঞ্জি।
« Last Edit: July 15, 2018, 11:45:45 PM by Farhana Haque »
কারো মত নয় আমরা হবো যার যার মত। প্রতিজন "আমি" হবো এক একটি আদর্শ। জীবন একটিই। সময় অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত। নিজেকে প্রমান করার এবং ভালো কাজ করার এখনই সময়।